৭০ প্রশিক্ষণার্থী পেলেন এইচবি এভিয়েশনের সনদ

সম্প্রতি এয়ারটিকিটিংয়ের ওপর কারিগরি শিক্ষা দেওয়ার জন্য এইচবি এভিয়েশন ট্রেনিং সেন্টারকে অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড।

এ উপলক্ষে ট্রেনিং সেন্টারের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম নিয়ে ৭ জানুয়ারি রাজধানীর একটি হোটেলে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

 

অনুষ্ঠানে মূল কি-নোট উপস্থাপন করেন প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা যাকি এস বারী। তিনি বলেন, ‘এভিয়েশন সেক্টরের জন্য এইচবি এভিয়েশন ট্রেনিং সেন্টার প্রতিনিয়ত সঠিক ও সময়োপযোগী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তরুণ জনগোষ্ঠীকে কর্মক্ষম করে গড়ে তুলছে।’

তিনি বলেন, ‘কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদন পাওয়ায় এইচবি এভিয়েশন থেকে শিক্ষার্থীরা ৬ মাসের সরকারি ডিপ্লোমা কোর্স করতে পারবেন। যারা এয়ারটিকিটিং এজেন্সির মালিক বা কর্মী আছেন, যাদের কোনো সনদ নেই; তারাও শর্ট আরপিএল কোর্সের মাধ্যমে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের সনদ পেতে পারেন।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বেতারের অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর সাদাত জাহিদ, নাসার ট্রেনিংপ্রাপ্ত প্রথম বাংলাদেশি ও বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা আরিফুল হক অপু।

এসময় জিডিএস সফটওয়্যার ট্রাভেলপোর্ট বাংলাদেশ, সেইবার বাংলাদেশ, অ্যামাডিউস বাংলাদেশের প্রধান কর্মকর্তারা, বিমান বাংলাদেশসহ বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের ব্যক্তিবর্গ ও ট্রেনিং সেন্টারের প্রশিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।

অতিথিরা তাদের বক্তব্যে এইচবি এভিয়েশনের এমন কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানান এবং প্রশংসা করেন।

আয়োজকরা জানান, এইচবি এভিয়েশন ট্রেনিং সেন্টার যাত্রা শুরু করে ২০১৭ সালের শেষদিকে। এ প্রতিষ্ঠান থেকে ৩০টি ব্যাচের ৫ শতাধিক শিক্ষার্থী প্রশিক্ষণ শেষে বিভিন্ন এয়ারলাইন্স এবং ট্রাভেল এজেন্সিতে কর্মরত।

অনুষ্ঠানে ২০২১ সালে সফলভাবে কোর্স সম্পন্নকারী ৭০ শিক্ষার্থীর মাঝে সনদ এবং ট্রেনিং নিয়ে উদ্যোক্তা হওয়া ২০ শিক্ষার্থীকে ‘স্টার স্টুডেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠান শেষে এইচবি এভিয়েশন ট্রেনিং সেন্টারের প্রশিক্ষকরা গণমাধ্যমকর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.